নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক পাঠক বন্ধুর বাস্তব অভিজ্ঞতা

আমি রিফাত । একজন সমকামী পুরুষ ।
রুয়েটে পড়ছি ।
আমার বাবা একটা নামকরা আন্তর্জাতিক সংস্থার কনসালটেন্ট আর মা একটা ভার্সিটির টিচার । একটা ভাইও আছে আমার । কিন্তু তার সাথে আমার সম্পর্ক খুব একটা ভালো না । আমি ছাত্র হিসেবে ভালোই । তবে বাবা মার সাথেও কোথায় যেন একটা দূরত্ব চলে এসেছে । ছোট থেকেই আমি একা । তেমন কোন বন্ধু নেই । স্কুল ও কলেজেও আমার কোন বন্ধু ছিল না ।

রুয়েটে পড়ার সময় আমার প্রথম বন্ধু হল সাদ ।
ও আর আমি একই ডিপার্টমেন্টে পড়ি ।
ওর গার্লফ্রেন্ড বা বয়ফ্রেন্ড কিছুই নেই ।
ধীরে ধীরে আমাদের দুজনের মাঝে বুঝা পড়ার মাত্রাটা বাড়তে লাগল । খুব ভালো ছিল দিনগুলো । জীবনে প্রথম বন্ধু পেলাম তো তাই !
ওর আর আমার মাঝে অনেক তফাৎ ।
আমি শর্টস পরি আর ও ফুল প্যান্ট পরে ।
আমি অতি আধুনিক পরিবারের ছেলে আর ও গোঁড়া ধর্মীয় পরিবারের ছেলে ।
আমি হাতে ব্রেসলেট পরি আর ও পরে ঘড়ি ।
আরও কত কি তফাৎ আমাদের মাঝে ।
অথচ দুজন প্রানের বন্ধু ।
কিন্তু ওর কথা বার্তা চিন্তা ভাবনা দেখে আমার ভালো লাগল । বেস্ট ফ্রেন্ড হলাম এতো ডিফারেন্স থাকার পরেও ।
ভালোই চলছিল সবকিছু ।
খুব ভরসা করতাম ওকে ।
ও ও ভরসা করত আমায় ।
একদিনের কথা ।
ওকে মন খুলে বললাম যে আমি সমকামী ।
খুব অবাক করে দিয়ে ও সবকিছু সহজ ভাবে আমাকে মেনে নিল ।
কিন্তু ও আমার সমকামিতাকে মেনে নিতে পারল না ।
ও চাইল আমি সমকামী জীবন থেকে ফিরে আসি ।
এরপর একদিন কি মনে করে ও আমার কপালে একটা চুমু দিল ।
আমি খানিকটা অবাকই হলাম ।
ও আমার দিকে তাকিয়ে বলল,এটা ভালবেসে দিলাম ।
এরপর মাঝে মাঝে আমিও ওর হাতে চুমু খেতাম ।
ও আমার কপালে আর ঘাড়েও চুমু খেত ।
আমরা দিনের অনেক সময় একসাথে থাকতাম ।
সারাদিন খাওয়া, ক্লাস, ঘোরাঘুরি আরও কত কি !

একদিনের কথা ।
আমি আমার রুমে শুয়ে আছি ।
ল্যাপটপ এ গান শুনছি মনোযোগ দিয়ে ।
আর ও একটা মেয়ের সাথে চ্যাট এ বিজি ।
আচমকা কি মনে করে ও বলল, তুই খুব জেলাস আমার প্রতি তাই না ?
কেন ? আমি অবাক হলাম ওর কথায় ।
এই যে মেয়ের সাথে চ্যাট করছি ।
আমি কিছুই বুঝলাম না ।
আরেকদিন সে বলল, তোর কারনে সবার কাছ থেকে আমি নিজেকে গুটিয়ে নিচ্ছি ।
রাতে রুমে আসার পর যদি মাঝে মাঝে খোঁজ খবর নেয়ার জন্য ওকে ফোন দিতাম ও খুব বিরক্ত হত ।
আরও অনেক কিছু নিয়ে দিনকে দিন ঝামেলা বাড়তেই থাকল ।
আমি অনেক চেষ্টা করতাম সবকিছু সহজভাবে নেয়ার জন্য ।
কিন্তু ও আমাকে খুব কড়া ভাষায় কথা শুনাতে শুরু করল ।
মাঝে মাঝে তাই প্রচুর কান্না পেত রাতে ।

এখন অবরোধের জন্য ভার্সিটি বন্ধ ।
আমরা এখন যার যার বাসায় ।
এই কটা দিন একটা বারের জন্যও ও আমাকে ফোন দিয়ে খবর নেয় নি ।
অথচ সে ফেসবুকে ঠিকই বসে ।
অনেক স্ট্যাটাস দেয় ।
সারাক্ষন চ্যাট করে ।
কিন্তু আমার কোন মেসেজের উত্তর দেয় না ।
খুব কষ্ট পাই ।
গত দুইদিন আগে ওকে ফোন করে বললাম, দোস্ত , তোকে আমি খুব ভালোবাসি ।
তুই আমার প্রথম পাওয়া বেস্ট ফ্রেন্ড । যদি কোন ভুল হয়, যদি কোন দোষ করি প্লিজ বলে ফেল । এভাবে ইগনোর করিস না আমায় ।

ও আমাকে বলল, আমি জানতাম, তোরা সমকামীরা সবাই এমন । এই রকমটাই হবে আমি জানতাম । শুনে রাখ, আমায় নিয়ে যদি কোন গে টাইপ চিন্তা করিস তাহলে আমি চলে যাব । আমি সমকামিতাকে ঘৃণা করি । আমি এসব পারব না ।

আমি ওর সব কথা শুনে অবাক !
আমি তো ওকে সমকামি হিসেবে ভালবাসিনি ।
আমি তো ওকে বন্ধুর মত ভালোবাসি ।
ও আমার জীবনের প্রথম বেস্ট বন্ধু ।
সারা রুয়েট ক্যাম্পাসে ও আমার একমাত্র ভালো সাথী ।
আমরা ভালো বন্ধু । ও আমার জীবন সাথী না ।
আমাদের মাঝে কোন কথা হচ্ছে না এখ্ন ।
কোন যোগাযোগ নেই ।
ও আমাকে সরাসরি বলে দিয়েছে যদি সমকামিতা বাদ দিতে পারিস তবে আমার সাথে বন্ধুত্ব রাখবি ।
আজ সবার কাছে আমার প্রশ্ন , আমি কি করব ?
একদিকে আমার সবচাইতে ভালো বন্ধু আমার ঘৃণা করে । আমায় নোংরা কীট মনে করে ।
অন্যদিকে সমকামিতা আমার জীবনের একটা অংশ ।
কোনটাকে বাদ দিব ?
আমার এখন কিছুই ভালো লাগে না ।
মাঝে মাঝে মনে হয় মারা যাই ।
কিন্তু পারি না ।
এটাই কি প্রত্যেকটা সমকামীদের শেষ পরিণতি !

6 thoughts on “নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক পাঠক বন্ধুর বাস্তব অভিজ্ঞতা

  1. Tumi aro onek bhalo bondu pabe jibone.Jara tomar bastobota mene bhalobashbe. Tumi tomar shomokamita sarte parbe na, ja kokhono shombhobo na. Kintu bhalo bondhu tumi pabe–NISHCHIT.

    Like

মন্তব্য করুন

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / পরিবর্তন )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / পরিবর্তন )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / পরিবর্তন )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / পরিবর্তন )

Connecting to %s