বিষমকামী বন্ধু

কখনোই যা করি না, একদিন সেটা করেছিলাম। একজন বিষমকামী বন্ধুর কাছে একবার নিজের প্রেম নিয়ে আলোচনা করছিলাম। বন্ধুটি বেশ উদারমনা, সংস্কৃতিমনা, মুক্তচিন্তার মানুষ – অন্তত সে তাই দাবী করে এবং আমরাও তাই জানি। ভেবেছিলাম, অন্যসব কট্টর, গোঁড়া মানুষদের থেকে তার মানসিকতা আলাদা হবে। অতো সব গুণের কথা জেনে ভরসা পেয়েছিলাম। তাই, গোঁড়ামীমুক্ত বন্ধুটিকে ভরসা করে বলেছিলাম নিজের প্রেমে পড়ার গল্পটি, ” অমুককে আমি ভীষণ ভালোবাসতাম, ওকে ভালো লাগতো খুব বেশি, আসলে ওর প্রেমে পড়েছিলাম আমি, ভীষণ কষ্টকর ছিলো সেই সময়গুলো……”।

নিজের গোপন, তীব্র অনুভবের ইতিহাস বলতে শুরু করেছিলাম, ভীষণ আবেগ নিয়ে।

আমার সমস্ত আবেগে, ভরসায় একগাদা ছাই ফেলেছিলো, সেই বন্ধুটির প্রতিক্রিয়া।
উদার, সংস্কারবিহীন, মুক্তমনা বন্ধুটি বলেছিলো, ” মানে কি? ওর কাছ থেকে পুটকি মারা খাওয়ার শখ হইসিলো? না কি ওরে পুটকি মারার শখ হইসিলো?”

চুপ করছিলাম কতক্ষণ, কোন কথাই আর মাথায় আসছিলো না। কিছুক্ষণ পরে জিজ্ঞেস করেছিলাম, “তুমি কি ইলার সাথে প্রেম করো ওর পুটকি মারতে? না কি ওর কাছ থেকে পুটকি মারা খাইতে?”
রীতিমতো ক্ষেপে গেছিলো, “এইগুলা কি ধরণের কথাবার্তা?”
বললাম, “কেন? তুমি যে ধরণের বলো, ভাবো সেই ধরণেরই তো! তুমিই না আমাকে জিজ্ঞেস করলা, প্রেমে পড়েছিলাম কি পুটকি মারা খাওয়ার জন্য বা দেয়ার জন্য না কি?”
তার জবাব ছিলো, “বাস্তব-অবাস্তবের ব্যাপার আছে না? তুমি আবার একটা ছেলের প্রেমে পড় ক্যামনে?”
বুঝলাম, যাহা লাউ, তাহাই কদু; যাহা বাহান্ন, তাহাই তেপ্পান্ন; যাহা গন্ডমূর্খ কাঠমোল্লা, তাহাই এখানে আপাত উদারমনা; কোন পার্থক্য নেই কারো মানসিকতায়, বিকল্প যৌনতার ব্যাপারে।

আর কথা বাড়াই নি, তবে মনে মনে বলেছি অনেক – তোমার প্রেম মাশাল্লা এক্কেবারে স্বগগীয়, আমি প্রেমে পড়লেই হাবিয়ার কীট। তোমার প্রেম এক্কেবারে ‘আত্মার বন্ধন”, আমি প্রেমে পড়লেই খালি শরীরসর্বস্ব। তোমার পিরীত চিরন্তন, আর আমার অনুভূতি পাশবিক।
তোমরা চুদলেও “পবিত্র রিশতা”, তোমরা বুক-কোমর-পাছা থেকে শুরু করে নাক-ঠোঁট-বাল সবকিছু নিয়ে রসিয়ে রসিয়ে লিখলেও “অমর প্রেমের মহাকাব্য” , আমি নিজের আগ্রহ প্রকাশ করলেই ‘জান্তব’।
তোমাদের অনুভূতি “নিষ্পাপ পুষ্পকলি”, আর আমার বেলায় “মহাপাপ”।
তোমরা যতখুশী কামকেলী করো না কেন, শরীর নিংড়ে যতো সুখ নাও না কেন, তোমাদের “মহান প্রেম”-এ কোন কালিমা লাগে না; আমি প্রেমে পড়ে চুমু খেলেই দুনিয়া পাপে ভেসে যায়…

তোমাদের ধর্ম, তোমাদের সমাজ সব এক্কেবারে গোল্লায় যায়, আমায় ভালোবাসতে দেখলে।
স্বার্থপর ধর্ম বানিয়েছ নিজেদের সুবিধার জন্য, সুবিধাবাদী এক সমাজ গড়েছ নিশ্চিন্তে নিজেদের আখের গোছানোর জন্য, তার চেয়েও অনেক বেশি স্বার্থপর এবং জঘন্য মানসিকতা তিলে তিলে তোমরা লালন করেছ নিজেদের সুবিধাবাদী স্বভাবকে বৈধতা দেবার জন্য।
ধিক তোমাদের!

মূল লেখকঃ উইন্ডি স্ট্রম।

6 thoughts on “বিষমকামী বন্ধু

  1. Nice one… LIKED IT! tomar lekhata eto valo hoyese je share na kore parlam na. R afsos hoy sei sob gay der jonno jara eto boro sotti bisoy gulo jana and bojhar por e nijer attosonmantuku bisorjon dia str8 er pisone bokchod er moto ghore.

    Like

  2. জেনারেলি স্পিকিং, বাংলাদেশের স্ট্রেইট পোলারা (১০০ জনে ৯৯ জন) অতিশয় বোকচোদ, সে যতই সংস্কৃতিমনা ব্লা ব্লা ব্লা ভাব ধরুক না কেন। ইন দি এন্ড তারা মনে করে ভ্যাজাইনার মধ্যে ডিক ঢুকানোই হইলো প্রেম, অন্যান্য সব কিছু কলুষিত, নিষিদ্ধ। আমি যে পরিবেশ পরিমণ্ডলে বড় হইছি, যদি স্ট্রেইট হইতাম তাইলে খুব সম্ভবত ঐ বোকচোদদের তালিকাতেই নাম লিখাইতাম। আর সে জন্য আমি প্রায়ই বন্ধুদেরকে বলি, গে হওয়াটা আমার লাইফের সবচেয়ে বড় ব্লেসিং। অতি বুদ্ধিমান না হইলেও আমি বোকচোদ না, অ্যাট লিস্ট আমি ভিন্ন চিন্তাধারাকে প্রশ্রয় দেই, বোঝার চেষ্টা করি এবং দ্বিমত পোষণ করলেও শ্রদ্ধা করি।

    অনেক ঘাত-প্রতিঘাত, চিন্তাভাবনার মধ্য দিয়ে যাওয়ার পর বুঝতে পেরেছি “স্ট্রেইটরা সংখ্যাগুরু, তাই তাদের অ্যাকসেপটেন্স আমাদের দরকার” এই কথাটা ভুল। আমাদের যেটা দরকার সেটা হল আর্থিক স্থিতিশীলতা, শিক্ষা এবং চড় খেলে লাথি মারার মানসিকতা। উন্নত বিশ্বে এখন প্রকাশ্যে হোমোফোবিক আচরণ করার আগে সবাই দু’বার ভাবে কারণ একই এক সামাজিক স্তরে সমকামীরা সাধারণত অন্যদের চেয়ে এগিয়ে থাকে। আমাদের সংখ্যালঘুত্ব আসলে আমাদের শক্তি, সমাজসৃষ্ট প্রবল বৈষম্য আমাদের নিয়ে আসবে একই সমতলে।

    Like

  3. kothai gele ekta sottikarer somokami valobasar manush pai bolte paren??ekhn sobai only sex chai..r vlo lge eka eka thkte..beche thakar jnno amr ekta valobasar manush chai thk golpe jmn manusher kotha bloechen j valobasa k sob kchur aga gurutto debe…plz bondhura erkm kau thkle janiyo..
    im ron frm kolkata..
    7688041966

    Like

মন্তব্য করুন

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / পরিবর্তন )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / পরিবর্তন )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / পরিবর্তন )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / পরিবর্তন )

Connecting to %s