শ্রীকান্ত

“……………-ভালো আছিস তো রে শ্রীকান্ত?
বুকের ভিতরটা ধক করিয়া উঠিল। তখনও তাহার মুখ দেখিতে পাই নাই; কিন্তু বুঝিলাম, এ ইন্দ্র! দেহের ভিতর দিয়া বিদ্যুতের তীব্র প্রবাহ বহিয়া গেলে যে যেখানে আছে এক মুহুর্তে যেমন সজাগ হইয়া উঠে, ইহার কন্ঠস্বরেও আমার সেই দশা হইল! চক্ষের পলকে সর্বাঙ্গের রক্ত চঞ্চল, উদ্দাম হইয়া বুকের উপর আছাড় খাইয়া পড়িতে লাগিল। কোনমতেই মুখ দিয়া একটা জবাব বাহির হইল না…………………
……………………………কিন্তু কতটুকু ইহাতে বুঝাইল? যে জানে না, তাহার কাছে আমার মনের কথা কতটুকু প্রকাশ পাইল? আমিই বা কি করিয়া তাহাকে জানাইব, এবং সেই বা কি করিয়া তাহা জানিবে? যে নিজের জীবনে একটি দিনের তরেও অনুভব করে নাই, যাহাকে প্রতিনিয়ত স্মরণ করিয়াছি, কামনা করিয়াছি, আকাঙক্ষা করিয়াছি, অথচ পাছে কোথাও কোনরুপে দেখা হইয়া পড়ে এই ভয়েও অহরহ কাঁটা হইয়া আছি…………” ( শ্রীকান্ত – শরৎচন্দ্র চট্টোপাধ্যায়)
— শ্রীকান্ত নিশ্চয়ই সমকামী ছিলো না, বয়সকালে পিয়ারীর সাথে তার সুগভীর প্রেমই সে সাক্ষ্য দেয়। কিন্তু অল্প বয়সে ইন্দ্রের প্রতি তার এই তীব্র অথচ নিষ্কাম মোহের নাম কি? শুধুই বন্ধুত্ব? বন্ধুর প্রতি ভালোবাসা থাকে, কিন্তু এমন লজ্জা-ব্রীড়া থাকাও কি স্বাভাবিক বন্ধুত্বের সম্পর্কে স্বাভাবিক? না কি এটুকু অনুভূতি শুধুই বিশেষ কোন বন্ধুর জন্য হয়ে থাকে? সেই বিশেষ বন্ধুত্বটিকে কি বন্ধুত্বের চেয়েও বেশি কিছু বলা যাবে? প্রেম না হয়েও প্রেমের খুব কাছাকাছি কিছু?

মূল লেখকঃ উইন্ডি স্ট্রম।

3 thoughts on “শ্রীকান্ত

  1. সমাজ সম্পর্কগুলোকে কোন নাম দেয় নি….. আর কতিপয় বিশিষ্ট মানসিক ভারসাম্যহীন মানুষের জন্য তা আরও বেশি কঠিন হয়ে পড়ে!!🙂

    Like

  2. ছোটবেলায় যখনি ‘শ্রীকান্ত’ পরেছি, ইন্দ্রকে খুব হিংসে হত। ইসস, আমাকেও যদি এরকম কেউ ভালবাসত! এই বিষয়টা আমাকেও খুব ভাবাত। শরৎচন্দ্র ও কি তবে আমাদের মতই কেউ ছিলেন?😉

    Like

মন্তব্য করুন

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / পরিবর্তন )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / পরিবর্তন )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / পরিবর্তন )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / পরিবর্তন )

Connecting to %s